Home / খেলাধুলা / মরে গিয়ে হলেও পিএসজিকে ফাইনালে তুলব : নেইমার

মরে গিয়ে হলেও পিএসজিকে ফাইনালে তুলব : নেইমার

স্পোর্টস ডেস্ক  :   ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের শিরোপা এখনও নিশ্চিত হয়নি টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর (পিএসজি)। টানা চতুর্থ শিরোপা জিততে হলে শেষ তিন ম্যাচ জেতার পর ভাগ্যের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে তাদের। তবে অতটা কঠিন নয় উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সমীকরণ।

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের সর্বোচ্চ মর্যাদার টুর্নামেন্টে শিরোপা জিততে আর মাত্র দুইটি জয় প্রয়োজন পিএসজির। প্রথমটি সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে। আর পরে ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ বা চেলসির যেকোনো এক দলকে হারালেই মিলবে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা।

সেলক্ষ্যে আজ (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির মাঠে খেলতে নামবে পিএসজি। নিজেদের ঘরের মাঠে প্রথম লেগের ম্যাচে ১-২ গোলে হেরেছে ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নরা। ফলে দ্বিতীয় লেগে অন্তত দুই গোলের জয় প্রয়োজন তাদের।

এ জয়ের জন্য সম্ভাব্য যেকোনো কিছু করতে রাজি পিএসজির সবচেয়ে বড় তারকা নেইমার জুনিয়র। গত আসরের মতো এবারও দলকে ফাইনালে তুলতে প্রয়োজনে জীবনও দিয়ে দিতে রাজি এ ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন। ম্যান সিটির মুখোমুখি হওয়ার আগে এ কথা বলেছেন তিনি নিজেই।

নেইমারের ভাষ্য, ‘ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে আমাদের কঠিন এক ম্যাচ অপেক্ষা করছে। তবে আমাদের সবাইকে বিশ্বাস রাখতে হবে। আমাদের জয়ের ব্যাপারে পরিসংখ্যান কী বলছে, তাতে নজর না দিয়ে, নিজেদের ওপর বিশ্বাস করতে হবে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘প্যারিসের প্রতিটি মানুষকে জয়ের বিশ্বাসটা রাখতে হবে। যার মধ্যে আমি প্রথম, আমি ফ্রন্টলাইনে আছি। এ যুদ্ধের প্রথম যোদ্ধা আমি। ফাইনালে ওঠার জন্য নিজের সেরাটা দিবো এবং সম্ভাব্য সবকিছু করব। এমনকি সেটা যদি মাঠে যাওয়াও হয়।’

উল্লেখ্য, নিজেদের ঘরের মাঠে হওয়া প্রথম লেগের ম্যাচে আগে গোল করেও হেরে যায় পিএসজি। মার্কুইনহোসের ১৫ মিনিটে করা গোলের জবাবে ৬৪ ও ৭১ মিনিটে লক্ষ্যভেদ করে ম্যাচ জিতে নেয় ম্যান সিটি। তাই ফিরতি লেগে জিততে মরিয়া নেইমার-এমবাপেরা।

Check Also

প্রথম পরীক্ষায় স্ত্রীসহ মোস্তাফিজ করোনা নেগেটিভ

স্পোর্টস ডেস্ক  :   ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলে (আইপিএল) ভারত ফেরত মোস্তাফিজুর রহমান স্ত্রীসহ করোনা নেগেটিভ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *