Home / জাতীয় / প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের দাবি

প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের দাবি

ঢাকার ডাক ডেস্ক  :     প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের দাবি জানিয়েছে ‘প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তর ফোরাম’। সোমবার (১ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

ফোরামের আহ্বায়ক শাহ আলমের সভাপতিত্বে বক্তারা বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সময়ে দেশের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত উন্নয়ন প্রকল্পে কাজ করে থাকি। কিন্তু প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর আমরা অলস বসে থাকি। এতে করে আমাদের মেধাশক্তির সঠিক ব্যবহার হচ্ছে না।’

বক্তারা লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, ‘অত্যন্ত দুঃখের বিষয় এই যে, বিভিন্ন অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়ের পরিচালিত উন্নয়ন প্রকল্পের জনবল সুপ্রিম কোর্টের একই রায়ে আংশিক রাজস্ব বাজেটে স্থানান্তরিত হলেও বাকি কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ রাজস্ব বাজেটে স্থানান্তরিত হয়নি। এছাড়া বিভিন্ন অধিদফতরের বাস্তবায়িত একই প্রকল্পের ১ম/২য় অথবা পূর্ববর্তী পর্যায় রাজস্ব বাজেটে স্থানান্তর হলেও অধিদফতর বা মন্ত্রণালয়ের অবহেলায় পরবর্তী পর্যায়ের জনবল রাজস্বখাতে স্থানান্তর হচ্ছে না।’

এসময় শাহ আলম দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিভিন্ন প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন।

পাশাপাশি তারা ছয় দফা দাবি তুলে ধরেন।

দাবিগুলো হলো
১. সকল সরকারি উন্নয়ন প্রকল্পের জনবলের চাকরি প্রকল্প শেষে রাজস্ব খাতে স্থানান্তর করতে হবে এই মর্মে প্রকল্পের জনবল রাজস্ব খাতে স্থানান্তর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গত ১২.০৩.২০০৯ তারিখের পত্র নং ১২.৩৯.১৬.০০.০০.০১.২০০৯-৩১ মােতাবেক ‘উন্নয়ন প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে নেয়া বাঞ্ছনীয়’ আদেশের বাস্তবায়ন করতে হবে।

২. যে সমস্ত সমাপ্ত প্রকল্পের জনবলের চাকরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের জন্য হাইকোর্ট এবং সুপ্রিমকোর্টে মামলা চলমান তাদের চাকরি রাজস্বখাতে স্থানান্তর করতে হবে।

৩. প্রকল্প গ্রহণের সময় প্রকল্পের ডিপিপিতে প্রকল্প শেষে রাজস্ব খাতে জনবল স্থানান্তর হবে উল্লেখ করে সকল সরকারি দফতরে রাজস্ব খাতের শূন্য পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রকল্পে কর্মরত জনবলদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়ােগ দিতে হবে।

৪. প্রকল্পে নিয়ােগের সময় সরকারি চাকরিজীবীদের ন্যায় জাতীয় বেতন স্কেলে বাৎসরিক ইনক্রিমেন্ট পদ্ধতিতে নিয়ােগ দিতে হবে এবং প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরে প্রকল্পে যোগদানের তারিখ হতে চাকরির ধারাবাহিকতা থাকবে। এতে যদি কেউ উচ্চতর গ্রেড, পদোন্নতি, বকেয়া বেতন ও ভাতাদি প্রাপ্য হন তবে তা দিতে হবে।

৫. প্রকল্প গ্রহণের সময় আউটসাের্সিং পদ্ধতিতে নিয়ােগ বন্ধ করে সরাসরি নিয়ােগ পদ্ধতিতে জনবল নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং বিভিন্ন সরকারি দফতরে যে সকল কর্মচারী ৫ বছর বা ততােধিক সময় ধরে মাস্টাররােল বা দৈনিক মজুরিসহ-আউটসাের্সিং ভিত্তিতে কর্মরত আছেন তাদেরকে রাজস্ব খাতের শূন্য পদে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দিতে হবে।

৬. যেসকল প্রকল্পে ‘সর্বসাকুল্য বেতন পদ্ধতি’ও ‘আয় থেকে দায় পদ্ধতিতে বেতন-ভাতা বিদ্যমান তা পরিবর্তন করে
‘নিয়মিত বেতন-ভাতা ও ‘জাতীয় বেতন স্কেলে বেতন-ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে।

Check Also

‘যেভাবেই হোক বাড়ি যেতে হবে’

ঢাকার ডাক ডেস্ক  :     করোনা মহামারির কারণে সব ধরনের পরিবহন বন্ধ থাকলেও জীবনের ঝুঁকি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *