Breaking News
Home / ফটো গ্যালারি / হরভজন যে বলিউড নায়িকার প্রেমে মজেছিলেন

হরভজন যে বলিউড নায়িকার প্রেমে মজেছিলেন

বলিউডে অভিনেত্রী গীতার দ্বিতীয় ছবি ছিল ‘দ্য ট্রেন’। ২০০৭ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবির একটি গান টেলিভিশনে দেখেন হরভজন। তখনই তার মাথায় চেপে বসে, এই নায়িকার সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

বলিউডে অভিনেত্রী গীতার দ্বিতীয় ছবি ছিল ‘দ্য ট্রেন’। ২০০৭ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবির একটি গান টেলিভিশনে দেখেন হরভজন। তখনই তার মাথায় চেপে বসে, এই নায়িকার সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

কিন্তু হরভজন তখন বলিউডের কাউকেই চেনেন না। তবুও হাল ছাড়লেন না। বেশ কিছু দিন চেষ্টার পরে পেলেন ছবির নায়িকা গীতার নম্বর। নায়িকা গীতার কাছাকাছি পৌঁছতে হরভজনকে সাহায্য করেছিলেন যুবরাজ সিংহ। ফোন নম্বর পেয়ে গীতাকে মেসেজ করে একসঙ্গে চা-পানের আমন্ত্রণ জানান হরভজন। কিন্তু গীতা সেই প্রস্তাব এড়িয়ে যান।

কিন্তু হরভজন তখন বলিউডের কাউকেই চেনেন না। তবুও হাল ছাড়লেন না। বেশ কিছু দিন চেষ্টার পরে পেলেন ছবির নায়িকা গীতার নম্বর। নায়িকা গীতার কাছাকাছি পৌঁছতে হরভজনকে সাহায্য করেছিলেন যুবরাজ সিংহ। ফোন নম্বর পেয়ে গীতাকে মেসেজ করে একসঙ্গে চা-পানের আমন্ত্রণ জানান হরভজন। কিন্তু গীতা সেই প্রস্তাব এড়িয়ে যান।

পরে অবশ্য হরভজনকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের জন্য অভিনন্দন জানান গীতা। আলাপ আরও গাঢ় হয় আইপিএল উপলক্ষে। প্রথম আইপিএলের সময়ে হরভজনের কাছে দু’টি টিকিট চেয়েছিলেন গীতা। টিকিট দেয়ার সময় হরভজন তাকে কফিপানের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

পরে অবশ্য হরভজনকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের জন্য অভিনন্দন জানান গীতা। আলাপ আরও গাঢ় হয় আইপিএল উপলক্ষে। প্রথম আইপিএলের সময়ে হরভজনের কাছে দু’টি টিকিট চেয়েছিলেন গীতা। টিকিট দেয়ার সময় হরভজন তাকে কফিপানের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

এবার আর গীতা সেই প্রস্তাব এড়িয়ে যেতে পারেননি। তিনি কফি ডেটে এলেন। তবে হরভজনের ইঙ্গিত বুঝে প্রেমের প্রস্তাব পাশ কাটিয়ে যান। গীতা চেয়েছিলেন প্রথম দিকে শুধুই ভালো বন্ধু হয়ে থাকতে।

এবার আর গীতা সেই প্রস্তাব এড়িয়ে যেতে পারেননি। তিনি কফি ডেটে এলেন। তবে হরভজনের ইঙ্গিত বুঝে প্রেমের প্রস্তাব পাশ কাটিয়ে যান। গীতা চেয়েছিলেন প্রথম দিকে শুধুই ভালো বন্ধু হয়ে থাকতে।

গীতার জন্ম ১৯৮৪ সালের ১৩ মার্চ, ইংল্যান্ডের পোর্টসমাউথে। প্রবাসী পাঞ্জাবি পরিবারের এই তরুণী এসেছিলেন মুম্বাইয়ে। নায়িকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে। প্রথম ছবি ‘দিল দিয়া হ্যায়’ মুক্তি পেয়েছিল ২০০৬ সালে। সে সময় প্রেমের সম্পর্কে যেতে আগ্রহীও ছিলেন না তিনি।

গীতার জন্ম ১৯৮৪ সালের ১৩ মার্চ, ইংল্যান্ডের পোর্টসমাউথে। প্রবাসী পাঞ্জাবি পরিবারের এই তরুণী এসেছিলেন মুম্বাইয়ে। নায়িকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে। প্রথম ছবি ‘দিল দিয়া হ্যায়’ মুক্তি পেয়েছিল ২০০৬ সালে। সে সময় প্রেমের সম্পর্কে যেতে আগ্রহীও ছিলেন না তিনি।

তবে হরভজনও সহজে পিছিয়ে আসার পাত্র নন। তিনি গীতার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক জিইয়ে রাখলেন এক তরফাই। প্রায় ১ বছর পরে তার প্রস্তাবে ‘হ্যাঁ’ বলেন গীতা।

তবে হরভজনও সহজে পিছিয়ে আসার পাত্র নন। তিনি গীতার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক জিইয়ে রাখলেন এক তরফাই। প্রায় ১ বছর পরে তার প্রস্তাবে ‘হ্যাঁ’ বলেন গীতা।

পরে এক সাক্ষাৎকারে গীতা জানিয়েছিলেন তার বন্ধুরা সকলে হরভজের প্রশংসা করেছিলেন। তাই সব দিক ভেবে তিনি রাজি হয়ে যান প্রেমের প্রস্তাবে সম্মতি জানাতে।

পরে এক সাক্ষাৎকারে গীতা জানিয়েছিলেন তার বন্ধুরা সকলে হরভজের প্রশংসা করেছিলেন। তাই সব দিক ভেবে তিনি রাজি হয়ে যান প্রেমের প্রস্তাবে সম্মতি জানাতে।

হরভজন এবং গীতা তাদের সম্পর্ক যতটা সম্ভব লুকিয়ে রাখতেন। সংবাদ মাধ্যমের সামনেও কোনো দিন স্বীকার করেননি তাদের প্রেমের কথা। ২০১৫ সালের নভেম্বরে জালন্ধরে পাঞ্জাবি রীতিনীতি মেনে তারা বিয়ে করেন।

হরভজন এবং গীতা তাদের সম্পর্ক যতটা সম্ভব লুকিয়ে রাখতেন। সংবাদ মাধ্যমের সামনেও কোনো দিন স্বীকার করেননি তাদের প্রেমের কথা। ২০১৫ সালের নভেম্বরে জালন্ধরে পাঞ্জাবি রীতিনীতি মেনে তারা বিয়ে করেন।

২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের পোর্টসমাউথে জন্ম হয় হরভজন-গীতার একমাত্র সন্তানের। মেয়ের নাম তারা রেখেছেন হীনায়া হীর প্লাহা।

২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের পোর্টসমাউথে জন্ম হয় হরভজন-গীতার একমাত্র সন্তানের। মেয়ের নাম তারা রেখেছেন হীনায়া হীর প্লাহা।

যে স্বপ্ন নিয়ে গীতা ভারতে পা রেখেছিলেন, সেই সফল নায়িকা হওয়ার ইচ্ছে অবশ্য অধরাই থেকে যায়। দ্বিতীয় ছবির ৬ বছর পরে মুক্তি পেয়েছিল তার তৃতীয় ছবি ‘জিলা গাজিয়াবাদ’।

যে স্বপ্ন নিয়ে গীতা ভারতে পা রেখেছিলেন, সেই সফল নায়িকা হওয়ার ইচ্ছে অবশ্য অধরাই থেকে যায়। দ্বিতীয় ছবির ৬ বছর পরে মুক্তি পেয়েছিল তার তৃতীয় ছবি ‘জিলা গাজিয়াবাদ’।

২০০৬ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে গীতা মাত্র ৬টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার শেষ ছবি ‘লক’ মুক্তি পেয়েছে ২০১৬ সালে। মা হওয়ার পরে অভিনয় জগতকে পুরোপুরি বিদায় জানিয়েছেন তিনি।

২০০৬ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে গীতা মাত্র ৬টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার শেষ ছবি ‘লক’ মুক্তি পেয়েছে ২০১৬ সালে। মা হওয়ার পরে অভিনয় জগতকে পুরোপুরি বিদায় জানিয়েছেন তিনি।

হরভজন-গীতার প্রেমপর্ব নাটকীয় হলেও একটা সময় ভাজ্জি জানিয়েছিলেন, তিনি শুধুমাত্র পরিবারের পছন্দ করা পাত্রীকেই বিয়ে করবেন। সে সময় বেশ কয়েকবার বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়েও দিয়েছিলেন তিনি।

হরভজন-গীতার প্রেমপর্ব নাটকীয় হলেও একটা সময় ভাজ্জি জানিয়েছিলেন, তিনি শুধুমাত্র পরিবারের পছন্দ করা পাত্রীকেই বিয়ে করবেন। সে সময় বেশ কয়েকবার বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়েও দিয়েছিলেন তিনি।

হরভজন চেয়েছিলেন ক্যারিয়ার এবং ব্যক্তিগত জীবনে আরও একটু থিতু হওয়ার পরে বিয়ে করবেন। ২০০০ সালে তার বাবার হঠাৎ মৃত্যুর পরে পরিবারের দায়দায়িত্ব এসে পড়েছিল হরভজনের উপরেই।

হরভজন চেয়েছিলেন ক্যারিয়ার এবং ব্যক্তিগত জীবনে আরও একটু থিতু হওয়ার পরে বিয়ে করবেন। ২০০০ সালে তার বাবার হঠাৎ মৃত্যুর পরে পরিবারের দায়দায়িত্ব এসে পড়েছিল হরভজনের উপরেই।

তখন জাতীয় দলে হরভজনের যাত্রা সবে শুরু হয়েছে। ১৯৯৮ সালের মার্চে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তার টেস্ট অভিষেক হয়। সে বছরই তিনি সুযোগ পান ওয়ান ডে-তেও। ক্রমে তার অফস্পিন হয়ে ওঠে দলের অন্যতম সম্পদ।

তখন জাতীয় দলে হরভজনের যাত্রা সবে শুরু হয়েছে। ১৯৯৮ সালের মার্চে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তার টেস্ট অভিষেক হয়। সে বছরই তিনি সুযোগ পান ওয়ান ডে-তেও। ক্রমে তার অফস্পিন হয়ে ওঠে দলের অন্যতম সম্পদ।

Check Also

স্মৃতির অ্যালবামে ম্যারাডোনা

১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপে যে জাদু দেখিয়েছিলেন ম্যারাডোনা, তাতেই তিনি সবার মন জয় করেছিলেন। দিয়েগো আরমান্দো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *