Home / আর্ন্তজাতিক / কোভিড-১৯ : যুক্তরাষ্ট্রে দেড় লাখ মৃত্যু

কোভিড-১৯ : যুক্তরাষ্ট্রে দেড় লাখ মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় বিশ্বের শীর্ষস্থানে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে মোট মৃত্যু এক লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। খবর রয়টার্স।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) বাংলাদেশ স্থানীয় সময় দুপুর দুইটা নাগাদ দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লাখ ৫৩ হাজার ৮৪০ জনে।

এর আগে, বুধবার (২৯ জুলাই) দেশটিতে এক হাজার ৪৬১ জনের মৃত্যু নথিভুক্ত করা হয়েছে। যা ২৭ মে’র এক হাজার ৪৮৪ জন মৃত্যুর পর থেকে দৈনিক হিসেবে সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটনা।

এখন যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে প্রায় প্রতি মিনিটে একজন করে মারা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থ রয়টার্স।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা দুই মাসের মধ্যে এখন সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বাড়ছে। গত ১১ দিনে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে ১০ হাজার। তবে, নতুন আক্রান্তের সংখ্যা সাপ্তাহিক হিসাবে জুনের পর সম্প্রতি প্রথমবারের মতো হ্রাস পেয়েছে।

কিন্তু, চলতি মাসে অ্যারিজোনা, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা ও টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি দেখা গেছে। রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় এ রাজ্যগুলো অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পুনরায় চালু করার উদ্যোগ নিয়েও পরে পিছিয়ে আসে। মার্চ ও এপ্রিলে ভাইরাসের দ্রুত বিস্তার ঠেকাতে এই রাজ্যগুলো লকডাউনে ছিল।

অন্যদিকে, চলতি মাসে রাজ্যের হিসাবে কোভিড-১৯ এ সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে টেক্সাসে। এখানে মারা গেছেন প্রায় চার হাজার ৩০০ জন। দুই হাজার ৯০০ মৃত্যু নিয়ে এরপরই আছে ফ্লোরিডা। তৃতীয় স্থানে থাকা সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ায় মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ৭০০ জনের।

পাশাপাশি, এ তিনটি রাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা দ্রুতগতিতে বাড়তে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রের রাজ্যগুলোর মধ্যে মোট মৃত্যু ও মাথাপিছু মৃত্যুর সংখ্যায় নিউ ইয়র্ক ও নিউ জার্সি এখনও সবার ওপরে আছে বলে জানাচ্ছে রয়টার্স।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের শীর্ষ ২০টি দেশের মধ্যে জনসংখ্যার অনুপাতে মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্র ষষ্ঠ স্থানে আছে। এখানে, প্রতি লাখে ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ তালিকায় শীর্ষে আছে যুক্তরাজ্য। তারপর যথাক্রমে স্পেন, ইতালি, পেরু ও চিলি’র অবস্থান।

Check Also

বাংলাদেশও পাবে করোনার টিকা, দাম হবে হাতের নাগালেই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  :   করোনা থেকে মুক্তি পেতে ভ্যাকসিনের দিকেই তাকিয়ে আছে পুরো বিশ্ব। এর মধ্যেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *