Home / আর্ন্তজাতিক / সন্ধান মিলল পৃথিবীর সর্বপ্রাচীন বস্তুর

সন্ধান মিলল পৃথিবীর সর্বপ্রাচীন বস্তুর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :      উদ্ধার হওয়া একটি উল্কাপিন্ড বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা আবিস্কার করেছেন যে, সেটি বর্তমান পৃথিবীতে থাকা সবচেয়ে প্রাচীন কোনো বস্তু। ১৯৬০ এর দশকে মহাকাশ থেকে পৃথিবীতে পতিত হওয়া ওই প্রস্তরখন্ড থেকে তারা কিছু ধূলিকণা খুঁজে পেয়েছেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, উদ্ধার হওয়া ওই বস্তুটির বয়স ৭৫০ কোটি বছরেরও বেশি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আমাদের সৌরজগতের জন্মের অনেক আগেই তারকামন্ডলীতে ধীরে ধীরে দানা বেঁধে তৈরি হয়েছিল এই ধূলিকণা। যুক্তরাষ্ট্রের অলাভজনক বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সেস জার্নালের প্রসিডিংয়ে এই ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে।

নক্ষত্রের মৃত্যুর পর তার ভেতরের কণাগুলো মহাশূন্যে ছড়িয়ে পড়ে। এ ‘সৌর পূর্ব কণা’রা এরপর নতুন নক্ষত্র, গ্রহ, চাঁদ বা উল্কায় সংযুক্ত হয়। গবেষক দলের নেতৃত্বদানকারী শিকাগো ফিল্ড জাদুঘরের কিউরেটর ও শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ফিলিপ হেক বলেন, ‘এগুলো নক্ষত্রের অকাট্য নমুনা, সত্যিকারের স্টারডাস্ট।

যুক্তরাষ্ট্র এবং সুইজারল্যান্ডের একদল গবেষক ১৯৬৯ সালে অস্ট্রেলিয়ায় পতিত মর্চিসন উল্কার একটি অংশে থাকা ৪০টি ‘সৌর পূর্ব কণা’ বিশ্লেষণ করে পৃথিবীর প্রাচীনতম এই উপাদানের খোঁজ পেয়েছেন।

শিকাগো ফিল্ড জাদুঘর ও শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনিকা গ্রে, যিনি ওই গবেষক দলের সদস্য ছিলেন, তিনি বিবিসিকে বলেন, ‘উল্কার চূর্ণবিচুর্ণ অংশ থেকে এই গবেষণার শুরু। উল্কার সমস্ত টুকরো আলাদা হলে এটি এক ধরনের পেস্ট হয়ে যায় এবং যার একটা তীব্র বৈশিষ্ট্য থাকে, যা অনেকটা পচা চিনাবাদাম মাখনের মতো গন্ধযুক্ত হয়।’

গবেষক দলের নেতৃত্বদানকারী ফিলিপ হেক বলেন, ‘ওই পেস্টকে পরে অম্লে দ্রবীভূত করার পরই ধূলিকণাটুকু পাওয়া যায়। যা অনেকটা সুঁচ খুজতে খড়ের গাদা পুড়িয়ে ফেলার মতো ব্যাপার। মাত্র ১০ শতায়শ ধূলিকণার বয়স সাড়ে ৫ বিলিয়ন বছর। এছাড়া ৬০ শতাংশের ৪.৬ থেকে ৪.৯ বিলিয়ন এবং বাকিগুলোর বয়স দুটোর মধ্যবর্তীতে।’

Check Also

সিআইএকে তথ্য দেয়ায় সাবেক কর্মকর্তাকে ফাঁসি দিল ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  :   প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাবেক এক কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান। তার নাম রেজা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *