Monday , November 18 2019
Home / খেলাধুলা / টি-টোয়েন্টি দলের সঙ্গে দেশে ফিরছেন মোসাদ্দেকও

টি-টোয়েন্টি দলের সঙ্গে দেশে ফিরছেন মোসাদ্দেকও

স্পোর্টস ডেস্ক :    দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার উদ্দেশ্যে লাল বলের আট স্পেশালিস্ট ভারত চলে গিয়েছেন গত শুক্রবারেই। শনিবার থেকে অনুশীলনও শুরু করে দিয়েছেন তারা। তবে অপেক্ষা ছিলো টি-টোয়েন্টি সিরিজটি শেষ হওয়ার।

রোববার রাতে হতাশার পরাজয়ে শেষ হয়েছে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি। এই সিরিজ শেষ করে আর ভারতে থাকছেন না টি-টোয়েন্টি দলের সাত ক্রিকেটার, যারা নেই টেস্ট দলে। দেশে ফিরে আসছেন আজ (সোমবার) রাতেই।

তবে এই সাত ক্রিকেটারের সঙ্গী হচ্ছেন টেস্ট স্কোয়াডে থাকা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও। ফলে আজ রাতে বাংলাদেশে ফিরবেন মোসাদ্দেক সৈকত, নাঈম শেখ, আফিফ হোসেন, আরাফাত সানি, আবু হায়দার রনি, শফিউল ইসলাম, সৌম্য সরকার ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

দুপুরে নাগপুর থেকে দিল্লিতে যাওয়ার কথা রয়েছে এই আট ক্রিকেটারের। এরপর দিল্লি থেকে সরাসরি ফ্লাইটে আসবেন রাজধানী ঢাকায়। বিসিবি থেকে পাওয়া তথ্যমতে, রাত সোয়া নয়টা নাগাদ দেশে ফিরতে পারেন এই ৮ ক্রিকেটার।

কিন্তু টি-টোয়েন্টি দলের সঙ্গে কেন দেশে ফিরছেন টেস্ট দলে থাকা মোসাদ্দেক? বৃহস্পতিবার যেখানে সিরিজের প্রথম টেস্ট, সেখানে তিনি আবার দলের সঙ্গে যোগ দেবেনই বা কবে?

উত্তর মিলেছে প্রথম প্রশ্নের, বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানিয়েছেন পারিবারিক জরুরি প্রয়োজনেই আজ টি-টোয়েন্টি দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেশে ফিরছেন মোসাদ্দেক। তবে কবে আবার ভারতে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তিনি, তা জানানো হয়নি বিসিবির পক্ষ থেকে।

এদিকে টি-টোয়েন্টি দলের খেলোয়াড়রা যখন নাগপুর থেকে যাবেন দিল্লিতে, তখন প্রথম টেস্টের ভেন্যু ইন্দোরে যাবেন টেস্ট দলের ১৪ খেলোয়াড়। বেলা ১১টা ৪০ মিনিটের দিকে ইন্দোরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার কথা মুমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন দলটির।

ভারত সফরে বাংলাদেশের টেস্ট স্কোয়াড

সাদমান ইসলাম, ইমরুল কায়েস, সাঈফ হাসান, মুমিনল হক সৌরভ, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাইম হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, আলআমিন হোসেন, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী এবং এবাদত হোসেন।

Check Also

যে কারণে শেষ সময়ে মাশরাফিকে লুফে নিলো ঢাকা

স্পোর্টস ডেস্ক :    টি-টোয়েন্টি ফরমেট ছেড়েছেন ২০১৭ সালের এপ্রিলেই। অর্থাৎ আড়াই বছরের বেশি সময় ধরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *