Home / বিনোদন / আম্মাজানের ২০ বছর, মান্না ও আইয়ুব বাচ্চুকে মনে পড়ে

আম্মাজানের ২০ বছর, মান্না ও আইয়ুব বাচ্চুকে মনে পড়ে

বিনোদন ডেস্ক :  দেশের কালজয়ী সিনেমাগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি সিনেমা আম্মাজান। এখনো মানুষের আবেগের সঙ্গে মিশে আছে সেই সিনেমা। এখনো পথে প্রান্তরে মানুষের মুখে মুখে ঘুরে ফেরে এই ছবির ‘আম্মাজান আম্মাজান আপনি বড়ই মেহেরবান’ গানটি।

ছবিটিতে ছেলের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের ভালোবাসায় ভেসেছিলেন চিত্রনায়ক মান্না।

ছবিটির গল্পে দেখা যায়, মান্না তার মায়ের সব ইচ্ছে পূূর্ণ করার চেষ্টা করে, মায়ের সম্মানে যে কোনো কাজ সে করতে পারে। কিন্তু মা তাকে একটা কারণে ছোটবেলা থেকে পর্যন্ত ভুল বোঝে। ছবিটিতে এক প্রতিবাদী চরিত্র ছিলেন মান্না।

২৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে কাজী হায়াৎ শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার বিভাগে পুরস্কার লাভ করেন এই ছবিটির জন্য। কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘আম্মাজান’ ছবিটি প্রযোজনা করেছেন ও কাহিনী লিখেছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল এবং চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন কাজী হায়াৎ। ছবিটিতে শবনম ও মান্না ছাড়াও আরও অভিনয় করেছেন মৌসুমী, আমিন খান, ডিপজল, মিজু আহমেদ প্রমুখ।

আজ ছবিটির ২০ বছরে মনে পড়ে ছবির নায়ক মান্নাকে। মনে পড়ে ছবির জনপ্রিয় গায়ক আইয়ূব বাচ্চুকে। দুজনেই আজ প্রয়াত। তাদের স্মৃতির কথা মনে করে শোকাচ্ছন হলেন ছবির পরিচালক কাজী হায়াত। তিনি দুজনের জন্যই দোয়া চেয়েছেন।

কাজী হায়াৎ বলেন, আম্মাজান’ ছবিতে ‘আম্মাজান’ গানটি গেয়ে নতুন রেকর্ডের জন্ম দিয়েছিলো সে। তার এই গান বাংলাদেশের বাইরেও ঝড় তুলেছিলো বাংলার ভাষার শ্রোতা ও সিনেমার দর্শকদের মনে। এই ছবির ‘স্বামী আর স্ত্রী বানাইছে কোন মিস্তিরি’ গানটিও তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিলো।’

এরপর আরও অনেক সিনেমাতেই কণ্ঠ দিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চু। পেয়েছেন জনপ্রিয়তাও। তবে চলচ্চিত্রে আইয়ুব বাচ্চুর সাফল্যের নৈপথ্য নায়ক হিসেবে বাংলা সিনেমার ‘সুপারস্টার’ মান্নাকেই ভাবা হয়। তার অনুরোধ রাখতেই সিনেমায় প্লেব্যাক করতে এসেছিলেন বাচ্চু, আর গানে গানে এই আঙিনায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন অনন্য এক উচ্চতায়।

Check Also

এবার নিরব-ইমনের সঙ্গে মিথিলা

বিনোদন ডেস্ক  :   লাইভ টেকনোলজিসের লাইভ রেডিও অনুষ্ঠান ‘নিরব-ইমনের সাথে লাইভ রেডিও’র এক ঘণ্টা’। এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *