Home / জাতীয় / আগামী সপ্তাহের মাঝামাঝি কেবিনে নেবে ওবায়দুল কাদেরকে

আগামী সপ্তাহের মাঝামাঝি কেবিনে নেবে ওবায়দুল কাদেরকে

ঢাকার ডাক ডেস্ক   :    সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে আগামী সোমবার অথবা মঙ্গলবার কেবিনে নেওয়া হবে। এরআগে তাকে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হবে। তার শরীরের সঙ্গে বিভিন্ন আর্টিফিশিয়াল ডিভাইস সংযুক্ত করে রাখা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সিঙ্গাপুর সময় বিকেল সাড়ে পাঁচটায় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডাক্তার আবু নাসের এই তথ্য জানান।

এদিকে, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা সম্পূর্ণভাবে স্থিতিশীল হতে ৪ থেকে ৫ দিন লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ডাক্তাররা।

এই প্রসঙ্গে অধ্যাপক ডাক্তার আবু নাসের বলেন, ‘ওবায়দুল কাদেরের কেয়ারের জন্যই আরও তিন চার দিন আইসিইউতে রাখতে চায় মাউন্ট এলিজাবেথের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল।’ তিনি বলেন, ‘আইসিউতে যে ধরনের মনিটরিং করা যায়, সাধারণ কেবিনে সে ধরনের মনিটরিং করা সম্ভব নয়।’

এর আগে,  বুধবার (২০ মার্চ) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের কার্ডিওথোরাসিক সার্জন ডা. সিবাস্টিন কুমার সামির নেতৃত্বে ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন হয়।  সার্জারির পর তাকে পোস্টঅপারেটিভ কেয়ারে রাখা হয়।

 প্রসঙ্গত, ৬৭ বছর বয়সী ওবায়দুল কাদের হৃদরোগ, ডায়াবেটিস ছাড়াও শ্বাসতন্ত্রের জটিল রোগ সিওপিডিতে (ক্রনিক অবসট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ) ভুগছেন।

গত ২ মার্চ সকালে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে এনজিওগ্রামে তার হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের (রিং পরানো) মাধ্যমে অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ এয়ার আম্বুলেন্সে করে তাকে সিঙ্গাপুরে আনা হয়।

ওই দিন রাতেই একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা শুরু করেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে তার স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদেরও সিঙ্গাপুরে রয়েছেন। আরও  রয়েছেন ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা।

Check Also

পদ্মা সেতুর ১৬৫০ মিটার দৃশ্যমান

শরীয়তপুর   প্রতিনিধি :    শরীয়তপুরের জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে পদ্মা সেতুর একাদশ স্প্যান বসানো হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *