Home / অর্থনীতি / ১৩ হাজার কোটি টাকা মূলধন ফিরে পেল ডিএসই

১৩ হাজার কোটি টাকা মূলধন ফিরে পেল ডিএসই

অর্থনীতি ডেস্ক :    একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর দেশের শেয়ারবাজারে টানা ঊর্ধ্বমুখীতার দেখা মেলায় গত সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে (৬ থেকে ১০ ডিসেম্বর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন ফিরে পেয়েছে।

বিগত সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে চার দিনই পুঁজিবাজার ছিল ঊর্ধ্বমুখী। ফলে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক বেড়েছে প্রায় চার শতাংশ। অন্য দু’টি সূচকেরও বড় উত্থান হয়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ।

এদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ২০৬ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৭০ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ২০৪ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৮০ শতাংশ।

অপর দুটি সূচকের মধ্যে গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে ৬৯ দশমিক ৭৫ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৫৯ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ৬১ দশমিক ২১ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ২৫ শতাংশ।

আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক বেড়েছে ৪৭ দশমিক ৩০ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৭২ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ৩৮ দশমিক ৫৪ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৩ শতাংশ।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ২৬১টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ৭৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৭টির দাম।

এদিকে সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৯৮৫ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৭১৭ কোটি ১৮ লাখ টাকার শেয়ার। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় শেয়ার লেনদেন বেড়েছে ২৬৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা বা ৩৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ।

আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৪ হাজার ৯২৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকার শেয়ার। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ২ হাজার ১৫১ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ২ হাজার ৭৭৪ কোটি ১০ লাখ টাকা বা ১২৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

এ সময়ে মোট লেনদেনের ৮৭ দশমিক ১৮ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এছাড়া বাকি শেয়ারের মধ্যে ৭ দশমিক ৩২ শতাংশ ছিল ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৩ দশমিক ৭১ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১ দশমিক ৭৮ শতাংশ ছিল ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির দখলে।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অংকে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বিবিএস কেবলসের শেয়ার। প্রতিষ্ঠানটির মোট ১২৫ কোটি ৫৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ২ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১১০ কোটি ৫৭ লাখ টাকার। যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ২ দশমিক ২৪ শতাংশ। ১০৪ কোটি ৫৪ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি (বেক্সিমকো), জেএমআই সিরিঞ্জ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, অ্যাকটিভ ফাইন কেমিক্যাল, সিঙ্গার বাংলাদেশ, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি এবং ড্রাগন সোয়েটার।

Check Also

সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের ঋণ সাড়ে ৪৩ হাজার কোটি টাকা

অর্থনীতি ডেস্ক :   চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই’২০১৮-এপ্রিল’২০১৯) সঞ্চয়পত্র থেকে নেট বিনিয়োগ এসেছে ৪৩ হাজার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *