Wednesday , November 13 2019
Home / জাতীয় / ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ছাত্রদের আপাতত রাস্তা সামলাতে দিন’

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ছাত্রদের আপাতত রাস্তা সামলাতে দিন’

ঢাকার ডাক ডেস্ক :  রাজধানীর কুর্মিটোলায় বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে ও নৌমন্ত্রীর পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবি আদায়ে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। গত রোববার (২৯ জুলাই) দুর্ঘটনার পর থেকে টানা পঞ্চম দিনের মতো আজ বৃহস্পতিবার তারা আন্দোলত করেছেন।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শান্তিপূর্ণভাবে রাস্তা অবরোধ করে বিভিন্ন যানবাহনের ও চালকদের লাইসেন্স তল্লাশি করছেন শিক্ষার্থীরা। বাদ যাচ্ছে না পুলিশ, মন্ত্রী, এমপি কিংবা মিডিয়া কর্মীদের গাড়িও। লাইসেন্স থাকা যানবাহন ছেড়ে দেয়া হচ্ছে, অন্যথায় আটকে দেয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে অভিনব কায়দায় বিভিন্ন লেখা সম্বলিত প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে শিক্ষার্থীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

তেমনি একটি কাগজে লেখা, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ছাত্রদের আপাতত রাস্তা সামলাতে দিন, মন্ত্রী-পুলিশকে স্কুলে পাঠান, শিক্ষিত করতে। উই ওয়ান্ট জাস্টিস।’

এছাড়া শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনের বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। সেগুলো মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ‘যদি তুমি ভয় পাও তবে তুমি শেষ, যদি তুমি রুখে দাঁড়াও, তবে তুমি বাংলাদেশ’, ‘আমরা যদি না জাগি মা ক্যামনে সকাল হবে’, ‘বিবেক তবে কবে ফিরবে’, ‘জনপ্রতিনিধিদের সপ্তাহে অন্তত তিনদিন গণপরিবহনে যাতায়াত করতে হবে’, ‘মা তুমি আমার জন্য আর অপেক্ষা করো না, আমি আর ঘরে ফিরবো না’, ‘আমরা ৯ টাকায় ১ জিবি চাই না, নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘4G স্পিড নেটওয়ার্ক নয়, 4G স্পিড বিচার ব্যবস্থা চাই’, ‘পুলিশ আংকেল, আপনার চা-সিগারেটের টাকা আমি আমার টিফিনের টাকা দিয়ে দিচ্ছি। তাও আপনি এসব গাড়ি চালাতে দিয়েন না’, ‘পুলিশের গাড়ির লাইসেন্স নাই’ ইত্যাদি।

এদিকে আন্দোলনের পঞ্চম দিনে (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় শিক্ষার্থীদের কাছে যানবাহন ও চালক হিসেবে নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে পুলিশ সদস্যদের। শুধু তেজগাঁও নয়, রাজধানীর শাহবাগ, উত্তরা, মিরপুরেও দেখা গেছে একই চিত্র।

রাজধানীর এলিফেন্ট রোডের বাটা সিগনালে পুলিশের তিনটি গাড়ি আটকে দেয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় ড্রাইভিং লাইসেন্স ও কাগজপত্র না থাকায় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের নিজেদের নামেই মামলা করান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

jagonews24

গত রোববার (২৯ জুলাই) রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাস স্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০ জন শিক্ষার্থী।

মারা যাওয়া দুই শিক্ষার্থী হলেন- শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও বিজ্ঞান বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম রাজিব।

jagonews24

দুর্ঘটনার পর থেকেই ঢাকার বিভিন্ন স্থানে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। আজ (বৃহস্পতিবার) পঞ্চম দিনের মতো আবারও সড়কে নেমেছেন শিক্ষার্থীরা।

Check Also

ক্যাসিনো অভিযানে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছি : এনবিআর চেয়ারম্যান

ঢাকার ডাক ডেস্ক  :     ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাওয়া গেছে, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *