Tuesday , December 11 2018
Home / উপ-সম্পাদকীয় / আগামী নির্বাচনে কেমন হবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রচারণার ধরণ

আগামী নির্বাচনে কেমন হবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রচারণার ধরণ

কামরুল হাসান দর্পণ :নির্বাচনী বছর শুরু হলো। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সংবিধান অনুযায়ী, ৩১ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন হবে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি যে প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন ও ভোটারবিহীন নির্বাচন হয়, সে নির্বাচনে গঠিত সংসদ ২৯ জানুয়ারি প্রথম অধিবেশনে বসে। এই দিন থেকেই সংসদের ৫ বছরের মেয়াদ শুরু হয়। সংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় আগামী একাদশ নির্বাচন বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার তিন মাস আগেই অনুষ্ঠিত হবে। এ হিসেবে নির্বাচনের কাউন্ট ডাউন শুরু হয়ে গেছে। প্রধান দুই দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল প্রস্তুতি শুরু করেছে। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ টিম নিয়ে জেলা সফরে বের হয়েছেন। নিজ দলের নেতা-কর্মীদের সাথে বৈঠক করে আগামী নির্বাচনে প্রচারণার ইস্যু ঠিক করে দিচ্ছেন এবং তা মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার নির্দেশ দিচ্ছেন। পত্র-পত্রিকার প্রতিবেদন অনুযায়ী, আওয়ামী লীগের ১৫টি টিম এবং বিএনপির ৭০টি টিম পর্যায়ক্রমে জেলা সফরে রয়েছে। বলা যায়, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রধান দুই দল প্রচারণা যুদ্ধের কার্যক্রম শুরু করেছে। আমাদের দেশে রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দের সিংহভাগ কথা সাধারণ মানুষ শোনে, তবে বিশ্বাস করে খুব কম। এর কারণ, রাজনৈতিক নেতাদের বেশিরভাগই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের চেয়ে, সুন্দর সুন্দর কথামালা দিয়ে জনগণকে মুগ্ধ করতে দক্ষ বেশি। এজন্য তাদের কথা মেঠো বক্তব্য হিসেবে ধরা হয়। অর্থাৎ মেঠো বক্তব্য ধর্তব্যের মধ্যে নয় এবং খুব বেশি দাম দেয়ারও কিছু নেই। ফলে নেতাদের কোন বক্তব্য সঠিক আর কোনটি শুধু কথার কথা, এ নিয়ে জনগণকে বরাবরই দ্বিধা-দ্বন্দ্বে থাকতে হয়। বিশ্বাস-অবিশ্বাসের এক জটিল পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। অবশ্য শেষ পর্যন্ত নিজেদের বোধ-বুদ্ধি দিয়েই তারা সিদ্ধান্ত নেয়। আবার নেতাদের কথায় বিভ্রান্ত না হয়ে বাস্তবে তারা যে পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়, তা দিয়েও সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। পৃথিবীর কোনো দেশে জনগণকে এমন ধন্ধের মধ্যে পড়তে হয় কিনা বা রাজনৈতিক নেতাদের বক্তব্যকে মেঠো বক্তব্য বলে উড়িয়ে দেয়া হয় কিনা জানি না। আমাদের দেশে এটা রাজনীতির বৈশিষ্ট্য হয়ে গেছে। বলা বাহুল্য, যে দেশে রাজনৈতিক নেতাদের বক্তব্যের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন থাকে, সে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি ত্বরান্বিত হওয়ার সম্ভাবনা ধীর হয়ে পড়ে। জনগণকে যদি কেবলই রাজনৈতিক নেতাদের কথামালা শুনতে হয়, তাদের মুগ্ধ করার চেষ্টা চলতেই থাকে, তবে সাধারণ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন সুদূরপরাহত হয়ে পড়ে। একটা বিষয় ঠিক, জনসাধারণ রাজনৈতিক নেতাদের বক্তব্যে দ্বিধায় থাকলেও তাদের মেঠো বক্তব্যে সত্যিকারের কিছু বক্তব্যও থাকে। তা নাহলে দেশ একেবারে স্থবির হয়ে পড়ত। নেতাদের মেঠো বক্তব্যের মধ্যেই তাদের বক্তব্যের সত্যাসত্য লুকিয়ে থাকে। কাটছাঁট করে এ বক্তব্যের নব্বই শতাংশ বাদ দিলে যে দশ শতাংশ বাকি থাকে, তাই তাদের কাজের বক্তব্য। নেতাদের এই দশ শতাংশ বক্তব্য নিয়েই দেশ চলছে। এ থেকে বুঝতে অসুবিধা হয় না, দেশ কতটা ধীর গতিতে এগুচ্ছে। এই যে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আমরা নিম্ন মধ্যবিত্ত দেশে পরিণত হয়েছি, আর মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে উচ্চ মধ্যবিত্ত দেশে পরিণত হব এবং মাথাপিছু আয় বেড়েছে, এসব বক্তব্যের পুরোটাই কি সঠিক। নিম্ন মধ্যবিত্ত দেশের কথা যদি ধরা হয়, তবে বলতে হবে, এটা দশ শতাংশের মধ্যে রয়েছে। মাথাপিছু গড় আয় ১৬১০ ডলারের কথা ধরলে বলা যায়, এটা এক শুভংকরের ফাঁকি। কারণ প্রান্তিক জনগোষ্ঠী, নি¤œ আয় এবং কোটি কোটি বেকার জনগোষ্ঠীর কথা বিবেচনা করলে, তা মোটেও সঠিক নয়। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের উচ্চমূল্যের কথা যদি ধরা হয় তবে দেখা যাবে, মানুষের আয় দিন দিন কমছে। যা আয় করছে, তা দিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিস তারা কিনতে পারছে না। যেমন মোটা চালের দাম এখন কেজিতে ১০ থেকে ১২ টাকা বেশি। একটি পরিবারে যদি মাসে ৫০ কেজি চাল লাগে, তবে তার বাড়তি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা বেশি লাগছে। তার মানে, বাড়তি এই টাকাটা তার আয় থেকে কমে যাচ্ছে। পেঁয়াজের উর্ধ্বমূল্যের কারণে কেজি প্রতি একজনের পকেট থেকে বের হয়ে যাচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকার বেশি। এই টাকাটাও তার আয় থেকে কমে গেছে। সম্প্রতি একটি সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় গত কয়েক মাসে ৫ লাখ মানুষ দরিদ্রসীমার নিচে চলে গেছে। এই যে ৫ লাখ মানুষ দরিদ্রসীমার নিচে চলে গেল, পরিস্থিতি যদি না বদলায় তবে, তাদেরকে পুনরায় এই সীমায় পৌঁছে উন্নতি করতে অনেক সময় লেগে যাবে। চাল ও পেঁয়াজের মতো একইভাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্যান্য পণ্য কিনতে গিয়ে আরও অনেক টাকা বাড়তি ব্যয় হওয়ার কারণে সাধারণ মানুষের আয় কমে গেছে। গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি, যাতায়াত খরচ, সন্তানের পড়ালেখার খরচ, বাসা ভাড়া বেড়ে যাওয়ায় মানুষের আয়ে ব্যাপক হারে টান ধরেছে। আয় কমে যাওয়ায় অনেকে সামাজিক অনুষ্ঠান বা দাওয়াতে যাওয়ার বিষয়টিও এড়িয়ে যায়। কাজেই মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির বিষয়টি ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বক্তব্যের ধর্তব্যের দশ শতাংশের মধ্যে পড়ে না। অন্যদিকে কয়েক বছরের মধ্যে উচ্চ মধ্যবিত্তের দেশে পরিণত হওয়ার বিষয়টি আশাবাদের মধ্যে ছেড়ে দিতে হবে।
আগামী নির্বাচনে প্রধানত দুইটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে প্রচারণা যুদ্ধ চলবে। ক্ষমতায় থাকা ও যাওয়ার ক্ষেত্রে এ দুইটি দলই মূল দাবীদার। তৃতীয় কোনো রাজনৈতিক দলের এককভাবে ক্ষমতায় যাওয়ার আপাতত সম্ভাবনা নেই। তবে সে বড় দুই দলের সহায়ক শক্তি হতে পারে। এখন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিরোধী দল বিএনপি সাধারণ মানুষের সামনে নির্বাচনী প্রচারণার ক্ষেত্রে কি কি বিষয় তুলে ধরবে, এ বিষয়টি বিবেচনায় নেয়া দরকার। তবে দুই দলই প্রথমে যে একে অপরকে বিভিন্ন ধরনের বদনাম দিয়ে প্রচারণা শুরু করবে, এ কথা নিশ্চিত করে বলা যায়। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বিএনপির বিরুদ্ধে কী বলবে, তার ইঙ্গিত এখনই পাওয়া যাচ্ছে। পত্র-পত্রিকায়ও তার কিছু প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, বিএনপির নেতিবাচক রাজনীতি, তার শাসনামলে দেশ পরিচালনায় ব্যর্থতা, জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অর্থ পাচার, লুটপাট, দুর্নীতি, সহিংস আন্দোলনের মাধ্যমে মানুষ পুড়িয়ে মারা, আগুন সন্ত্রাস ইত্যাদি। এর পাশাপাশি নিজেদের শাসনামলের সাফল্য তুলে ধরে বলবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ সার্বিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ওয়াদার অধিকাংশই বাস্তবায়িত হয়েছে, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও আওয়ামী লীগ সরকার দরকার, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু হচ্ছে, বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান হয়েছে, জনগণের মাথাপিছু আয় বেড়েছে, দেশে বেকার সমস্যা কমেছে, দারিদ্রের হার কমেছে, রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে, দশ টাকা দরে চাল বিতরণ করা হয়েছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে ইত্যাদি। তবে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার বিষয়টি বিগত বছরগুলোতে যেভাবে বলা হয়েছে, তা বলবে কিনা এ নিয়ে সংশয়ের অবকাশ রয়েছে। কারণ দেশে এখন খাদ্য ঘাটতি চলছে। লাখ লাখ টন চাল ও গম আমদানি করতে হচ্ছে। আওয়ামী লীগ উল্লেখিত প্রচারণার বিষয়গুলো দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে ১৫টি টিম গঠন করেছে। ১০ জানুয়ারি থেকে প্রেসিডিয়াম সদস্যর নেতৃত্বে দেশব্যাপী সাংগঠনিক সফরে বের হবে। সফরে জনসভা, সমাবেশ, বর্ধিতসভা, উঠান বৈঠক, পথসভায় এসব প্রচারণার বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে। বলার অপেক্ষা রাখে না, আওয়ামী লীগের এসব প্রচারণার বিষয় জনসাধারণের কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হবে। তারা চুলচেরা বিশ্লেষণ করবে। কারণ এমনিতেই আমাদের দেশে এন্টিইনকাম্বেসি বা ক্ষমতাসীনদের বিরোধী একটা মনোভাব জনসাধারণের মধ্যে থাকে। যত ভাল করুক, তারা এক সরকারকে বেশিদিন ক্ষমতায় দেখতে চায় না। ক্ষমতার পরিবর্তন দেখতে চায়। বিএনপির ক্ষেত্রে নির্বাচনী প্রচারণার কাজটি অনেকটা জটিল হয়ে পড়বে। একেতো তাদের সভা-সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয় না, দিলেও নানা শর্তে সীমিত থাকে, অন্যদিকে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা হলে কর্মসূচি নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হতে পারে। আবার সারাদেশে দলটির প্রায় চার লাখ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে ২৫ হাজার মামলা রয়েছে বলে দলটির আইনজীবীরা জানিয়েছেন। এছাড়া বিএনপি মহাসচিব থেকে শুরু করে দলের স্থায়ী কমিটির ১২ নেতা, ৮ ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপার্সনের ৭ উপদেষ্টা, ৭ যুগ্ম মহাসচিব এবং চার সিটি মেয়রের বিরুদ্ধে কয়েকশ মামলা রয়েছে। এসব মামলায় প্রায় প্রতিদিনই নেতা-কর্মীদের আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে। এমনও আশঙ্কা করা হচ্ছে, এ বছরের মধ্যে অনেক নেতা-কর্মীর সাজা হতে পারে। এমন এক বিরূপ পরিস্থিতির মধ্য দিয়েই বিএনপিকে চলতে হচ্ছে। পাশাপাশি নির্বাচনী প্রস্তুতিও চালাচ্ছে। বিএনপি মহাসচিব স্পষ্টভাবেই বলেছেন, বিএনপি আগামী নির্বাচনে যাবে, তবে বর্তমান সরকারের অধীনে নয়। অর্থাৎ দলটি আগামী নির্বাচনে যাবে এবং এ অনুযায়ী প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করেও প্রস্তুতি নিচ্ছে। ইতোমধ্যে ৭০টি টিম তৃণমূলে যাওয়া শুরু করেছে। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলটি সাধারণ মানুষের সামনে কী বলবে, তার কর্মপন্থাও ঠিক করেছে। পর্যায়ক্রমে পরিস্থিতি বুঝে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে প্রচারণা চালাবে। দলটির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ইতোমধ্যে শ্লোগান তুলেছেন, এ বছর হবে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের বছর। এ শ্লোগান এখন দলের অন্যান্য শীর্ষ নেতারা তাদের বক্তব্যে তুলে ধরছেন। তবে জনসাধারণ গণতন্ত্র কী এ বিষয়টি তাত্ত্বিকভাবে কতটা বুঝবে, এ নিয়ে সংশয়ের অবকাশ রয়েছে। এর পরিবর্তে যদি বিভিন্ন জনসভায় দলটির নেতারা আরেকটু খোলাসা করে সাধারণ মানুষকে জিজ্ঞেস করেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে আপনারা কি ভোট দিতে পেরেছেন। কিংবা উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট দিতে পেরেছেন। এ সরকার কি আপনাদের ভোটে নির্বাচিত সরকার। তাহলে সাধারণ মানুষের পক্ষে ভোটের গণতন্ত্রের বিষয়টি বুঝতে সুবিধা হবে। পাশাপাশি দলীয় সরকারের অধীনে যে সুষ্ঠু নির্বাচন হয় না, তার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে তুলে ধরা যেতে পারে। বিএনপির প্রচারণার অন্যতম বিষয় হবে, এই ভোট না দিতে পারার ইস্যুটি। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিএনপি ও তার জোট যে আন্দোলন করেছে, সে আন্দোলনে যে জ্বালাও-পোড়াও এবং মানুষ হতাহত হয়েছে, এ কাজ যে তারা করেনি বরং স্যাবোটাজ হয়েছে, এ বিষয়টি যৌক্তিকভাবে তথ্যসহ সাধারণ মানুষের কাছে স্পষ্ট করতে পারে। তার নেতা-কর্মী, সাধারণ মানুষ, বিভিন্ন পেশাজীবীসহ যে ধরনের বেসুমার গুম, খুন, অপহরণ, বিচার বর্হিভূত হত্যাকান্ড এবং সুশাসনের তীব্র ঘাটতি, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা খর্বের চিত্র দলটি তুলে ধরতে পারে। ক্ষমতাসীন দলের শাসনামলে যে এসব পণ্য সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে গেছে, তা তুলে ধরতে পারে। দলটির প্রচারণার অন্যতম বিষয় হতে পারে ক্ষমতাসীন দলের ১০ টাকা কেজিতে চাল খাওয়ানোর বিষয়টি। সেই সাথে তুলনা করে সভা-সমাবেশে মানুষকে জিজ্ঞেস করতে পারে, আমাদের সময় আপনারা কত টাকায় চাল খেয়েছেন। এখন কত টাকায় খাচ্ছেন। দফায় দফায় জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির দাম বৃদ্ধি, ক্যুইক রেন্টাল বিদ্যুতের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা গচ্ছা দেয়ার বিষয়টি তুলে ধরতে পারে। শিক্ষা খাতে প্রশ্নপত্র ফাঁসের রেকর্ড এবং শিক্ষার মানের অবনতির বিষয়টিও আসতে পারে।

Check Also

ইশতেহার যেন হয় অঙ্গীকারপত্র

মোহাম্মদ আবু নোমান  :     নির্বাচনে জনগণ শুধু দল ও মার্কা নয়; প্রার্থীর যোগ্যতা, দক্ষতা, …

27 comments

  1. Thank you for the good writeup. It in fact was
    a amusement account it. Look advanced to far added agreeable from you!
    However, how could we communicate?

  2. Московский стоматологический центр. Эстетическая стоматология. Красивая белозубая улыбка привлекает внимание и делает человека еще прекрасней. Если подобная роскошь раньше была доступна только звездам и политикам, то теперь с помощью съемное протезирование на имплантах Народный рейтинг на независимом стоматологическом портале МосЗуб

  3. Портал zaxvatu.net не ставит перед собой целью стать новостным ресурсом, материалы на сайте и в его отдельных категориях публикуется периодически, не заостряя внимания на их новизне, потому ресурс можно охарактеризовать как – периодика.
    Портал захвату.нет разбит на категории, где размещаются статьи подходящие по смыслу относительно названий самих категорий.
    Категория «Недвижимость» наполняется новостями и статьями о недвижимости России, США и всего остального мира. Подкатегория «Дом» содержит всё то, что может относиться к этому понятию, интерьеры домов и многое другое. В подкатегории «Бизнес» добавляются статьи и обзоры финансового характера и все, что касается бизнеса и денег. Подразделу «Стройка» отведена роль пополняться материалами, относящимися как-либо к строительству и изменению в этой сфере.

  4. Последние модные стрижки здесь chyolka.ru

  5. We imagine that alone a skilful novelist can cunning erudite size that’s nothing abbreviated of best http://essaymonster.me/2017/12/18/writing-papers-in-biological-sciences-mcmillan-5th/ and brings the largest results. Small case study on organizational development with solution. Every online attempt writer in our network has a strong track-record of providing research and expos‚ aid to students. The good earth theme essay

  6. Новости компьютерного мира тут progio.ru

  7. Hi All

    I found a list with All Binary Options brokers Where you can trade cryptocurrency Currencies, too

    you can deposit using Crypto Currencies
    http://binaryoptionswithoutdeposit.com/cryptocurrency-brokers/

  8. Я именую это средство лекарством выходного дня. Здоровье у меня крепкое. Но с возрастом стал наблюдать упад сил в интимных делах. Веду энергичный образ жизни, чувствую себя прекрасно. Безумно люблю секс. А здесь такая неприятность… Возникла неуверенность, даже небольшой страх. Трудно понять, что проще было: принять свою несовершенность или купить виагру впервые.

    http://ofarma.ru

    Все дело в отношении к себе. Почему никого не удивляет, что к определенному моменту тревожат сложности с давлением, суставами и т.д.? А употреблять препарат для коррекции мужской силы вроде как позорно или не принято. Как быть с общественными представлениями, стериотипами? Я смог разобраться во всем этом. Осознал, что интереснее выпить эффективную таблетку за час до секса, чем ощущать себя неудачником.

    http://ofarma.ru/ – виагра поштучно купить

    Да, мне за пятьдесят. Но я веду более чем динамичный образ жизни во всех отношениях. Купить виагру в Москве с доставкой, оказывается, сейчас еще проще, чем сходить в аптеку. На сайте предложен широкий спектр различных лекарств схожей направленности. Но я остановился именно на этом популярном лекарстве. Один раз испытал, был результат, понравилась. Нет нужды пробовать что-то еще. К тому же в нем охвачены все самые расхожие свойства. Именно виагра увеличивает продолжительность сексуальной близости, повышает качество секса, провоцирует возникновение эрекции.

    Советую всем, кто столкнулся с аналогичной ситуацией – не сосредоточиваться на индивидуальных неудачах. А легко идти вперед – навстречу новым победам.

  9. Военно-мемориальный комплекс – Олег Валерьевич Шелягов, Кто такой Олегй Валерьевич Шелягов.

  10. базальная имплантация – лечить зубы, импланты штрауман.

  11. быстрый заработок для женщин – проверенный заработок в интернете, онлайн заработок с вложениями.

  12. Заказать услугу тайный покупатель – Заказать услугу тайный покупатель, 4 сервис тайный покупатель.

  13. Модные женские советы здесь malipuz.ru

  14. эксимерлазерная коррекция зрения в московской области – консультация окулиста в москве, глазные клиники столицы.

  15. Апартаменты Карловы Вары – Квартиры в Карловых Варах купить недорого, Недвижимость в Карловых Варах цены.

  16. Центр стоматологии. Частная клиника Аполлония оказывает стоматологические услуги любой сложности и по выгодной цене. Мы лечим кариес, гингивит, пародонтит, пародонтоз, кровоточивость десен и другие зубные заболевания. Лечение зубов в нашей клинике проводится под обезболиванием, быстро и качественно изготовление зубной коронки Предложения по продаже медицинских центров в Москве и Подмосковье, продажа стоматологических клиник

  17. спортивная страховка онлайн – страхование здоровья ребенка для спортивной секции, страховка на соревнования ребенку.

  18. Article writing is also a excitement, if you be familiar with after that you can write if not it is complex to write.
    Anonymous links

  19. брет питт аграбление казино – казино казино форум, кс го килл рулетка

  20. При этом длина волос, обеспечивающая качественную депиляцию, всего 1-2 мм. купить квартиру в центре мытищи вся информация о ценах на сайте определена собственниками объектов недвижимости. новостройки официальный сайт мытищи

  21. волгоград каталог – Садовые центры Волгоград, Парикмахерские Волгоград.

  22. Cheap Ciprofloxacin cheap cialis Viagra Otras Alternativas Buy Viagra Online Reviews

  23. детективное агентство москва – детективное агентство москва, детективное агентство в москве.

  24. Ваш диагноз гепатита с? Это не приговор у нас вы можете приобрести новые препараты для лечение софосбувир и дакласвир

    веласоф гепатит
    sovihep dacihep zydus heptiza отзывы

    гепцинат отзывы лечение
    ledifos купить

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *